আশুলিয়ায় মামলার প্রধান আসামীকে ধরে ছেড়ে দিলো পুলিশ


» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ - ০৬:৩৩:০১ অপরাহ্ন

শহিদুল্লাহ সরকার: আশুলিয়ায় এক রাজমিস্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টার ঘটনার প্রধান আসামী যুবলীগ নেতাকে আটকের পর ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এস আই একরামুল হকের বিরুদ্ধে। বুধবার সকালে আশুলিয়ার চিত্রাশাইল এলাকায় অভিযুক্ত প্রধান আসামীর নিজ বাড়িতে অভিযান চালানোর সময় তাকে আটকের পর ছেড়ে দেওয়া হয়।
তবে ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, এ ধরনের ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি জানান।
মামলার বাদী আমির হোসেন অভিযোগ করে বলেন, গত ১২ জানুয়ারী সন্ধ্যার দিকে চিত্রাশাইল এলাকায় তাদের ভাড়া বাড়ি থেকে তার ছেলে আবুল কাশেম পাশের এক আত্নিয়ের বাড়ির উদ্দেশ্যে বের হয়। এসময় সে প্রতিবেশী ইয়ারপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য শরিফের বাড়ির সামনে পৌছালে সেখানে আগে থেকেই উৎপেতে থাকা যুবলীগ নেতা শরীফ, ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মাসুমসহ ১০/১২ জনের একদল সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে তার ছেলের উপর হামলা চালায়। এসময় যুবলীগ নেতার লোকজন তার ছেলেক কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে।
এ ঘটনায় তিনি নিজে বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় এস আই একরামুল হক বুধবার সকালে প্রধান আসামীর বাড়িতে তাকে আটকের জন্য অভিযান চালায়। এসময় তার ছেলে আবুল কাশেম পুলিশের সঙ্গে ছিলেন। যুবলীগ নেতার বাড়িতে প্রবেশ করেই এস আই তাকে আটক করে। পরে টাকার বিনিময়ে আসামীকে ছেড়ে দেয় বলেও অভিযোগ করেন তিনি।
এ ঘটনার ভুক্তোভোগী আমির হোসেনের ছেলে আবুল কাশেম অভিযোগ করে বলেন, পুলিশ যখন অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করে তখন তিনি এস আই একরামুল হকের সাথেই ওই বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। যুবলীগ নেতাকে আটকের পর এস আই মামলার বাদী ও সাক্ষীদের ডেকে নিয়ে আসার কথা বলে ঘটনাস্থল থেকে তাকে সরিয়ে দেয়। পরে তিনি এস আইয়ের কথামতো বাড়ি থেকে তার বাবা ও স্বাক্ষীদের ডেকে নিয়ে আসেন। তবে তৎক্ষনে পুলিশের ওই কর্মকর্তা আটককৃত যুবলীগ নেতাকে টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়। আসামীকে ছাড়ার জন্যই মামলার বাদী ও স্বাক্ষীদের ডেকে নিয়ে আসার কথা বলে ঘটনাস্থল থেকে তাকে কৌশলে সড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ করেন তিনি।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত আশুলিয়া থানার উপ পরদির্শক (এস আই) একরামুল হকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রধান আসামীকে আটকের পর ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন। তবে সকালে বাদীর সহযোগীতায় প্রধান আসামীর বাড়িতে অভিযান চালানোর কথাটি স্বীকার করেন।তবে আশুলিয়া থানার (ওসি) রিজাউল হক দিপু বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও জানান।