আ’লীগের সম্মেলনে ক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা


» আশরাফুল ইসলাম | ডেস্ক এডিটর | | সর্বশেষ আপডেট: ০৬ অক্টোবর ২০১৯ - ০২:৩২:১১ অপরাহ্ন

ভেড়ামারার বাহাদুরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সাধারন সম্পাদক’র নাম ঘোষনায় ক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা চেয়ার ভাংচুর, আতশবাজি’র বিস্ফোরন ঘটিয়ে তান্ডবলীলা চালিয়েছে।

পরে ভেড়ামারা থানা পুলিশের আভিযানিক দল ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নেয়। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহতের সংবাদ পাওয়া যায়নি।

গতকাল ৫ অক্টোবর ছিল বাহাদুরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজমান ছিল।

সভাপতি প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ এবং সাধারন সম্পাদক প্রার্থী আলহাজ¦ রুবেল মাহমুদ রতন ও বাহাদুরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সোহেল রানা পবনের নেতৃত্বে বিশাল মিছিল সম্মেলনে যোগ দেয়।

সম্মেলনের প্রধান অতিথি ছিলেন, ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ¦ আখতারুজ্জামান মিঠু। ভেড়ামারা পৌরসভার মেয়র আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম সদস্য আলহাজ¦ রফিকুল ইসলাম চুনু সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন।

সম্মেলনের বাহাদুরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৩ বছরের মেয়াদে কমিটির নাম ঘোষনা করেন। এ সময় সভাপতি হিসেবে আলহাজ¦ শামিম আহমেদ এবং সাধারন সম্পাদক হিসেবে উজ্জ্বল হোসেনের নাম ঘোষনা করেন। এ সময় বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা উজ্জ্বল হোসেন কে জনবিচ্ছিন্ন ব্যাক্তি হিসেবে অভিহিত করে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেন।

উত্তেজিত নেতাকর্মীরা চেয়ার ভাংচুর করে ১০/১২টি আতশবাজী’র বিস্ফোরন ঘটায়। বিদ্যালয়ের বাহিরে মেইন সড়ক দখল করে নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এ সময় চরম আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে সাবেক চেয়ারম্যান সোহেল রানা পবন কে মাইকে বিক্ষোভ কারীদের শান্ত হয়ে দ্রুত স্থান ত্যাগ করার নির্দেশ দেন। পরে ভেড়ামারা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

ভেড়ামারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আখতারুজ্জামান মিঠু জানিয়েছেন, সফল ভাবে বাহাদুরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন শেষ হয়েছে। সম্মেলনের সভাপতি এবং সম্পাদকের নাম ঘোষনা করার পর কতিপয় উচ্ছিংখল সমর্থক চেয়ার ভাংচুর করে এবং বিস্ফোরন ঘটায়।

ভেড়ামারা থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ শেখ ওবাইদুল্লাহ জানিয়েছেন, সম্মেলন শেষ হওয়ার পর বিক্ষুদ্ধ সমর্থকরা চেয়ার ভাংচুর করে এবং আতজবাজি’র বিস্ফোরন ঘটায়। এতে আতঙ্কিত হয় পড়ে নেতাকর্মীরা। তবে কেউ হতাহত হয়নি।

ডেস্ক এডিটর / আ: ইসলাম