আম্পায়ারের ভুলে ইংল্যান্ড চ্যাম্পিয়ন!


» উত্তরা নিউজ টোয়েন্টিফর, ডেস্ক রিপোর্ট | | সর্বশেষ আপডেট: ১৫ জুলাই ২০১৯ - ০৬:৪২:৩০ অপরাহ্ন

ক্রীড়া ডেস্ক : সুপার ওভারে নিউজিল্যান্ডকে বাউন্ডারির ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম শিরোপা জিতে নিয়েছে ইংল্যান্ড। আর সেটা হয়েছে আম্পায়ারদের ভুলে। ক্রিকেটের আইনের বরাত দিয়ে এমনটাই জানিয়েছেন এমসিসি ল সাব-কমিটির সদস্য ও সাবেক আম্পায়ার সাইমন টাফেল।

ইনিংসের শেষ ওভারে চতুর্থ বলে মার্টিন গাপটিলের থ্রো বেন স্টোকসের ব্যাটে লেগে বাউন্ডারির বাইরে চলে যায়। তার আগে দৌড়ে দুই রান নেন স্টোকস ও আদিল রশিদ। আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনা অপর ফিল্ড আম্পায়ার মাইরাজ ইরাসমাসের সঙ্গে আলোচনা করে মোট ছয় রান দেন। তাতে ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত টাই হয়। নিয়ম অনুযায়ী এখানে পাঁচ রান দেওয়ার কথা ছিল। আর সেটা হলে ম্যাচ টাই হত না। নিউজিল্যান্ড ১ রানে জয়ী হত।

টাফেল নিউ এজ ও মর্নিং হেরাল্ড পত্রিকায় লিখেছেন, ‘ওভারথ্রো এর ক্ষেত্রে ভুল সিদ্ধান্তের শিকার হয়েছে নিউজিল্যান্ড। নিয়মানুযায়ী যখন ফিল্ডার বল থ্রো করবে তখন থেকে ওভারথ্রো এর হিসাব শুরু হবে। ওভারথ্রো আইনের ১৯.৮ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় রানটি বাদ যায়। সেটা হিসাব করাটা ছিল ভুল। তাতে ইংল্যান্ড মোট পাঁচ রান পাওয়ার কথা ছিল। সেখানে আম্পায়াররা ৬ রান দিয়েছেন।’

আইসিসির ওভারথ্রো আইনে যা বলা আছে :

 

‘আইনে উল্লেখ আছে যদি ওভারথ্রো থেকে বাউন্ডারি আসে তাহলে ব্যাটসম্যানদ্বয় বল থ্রো করার আগ পর্যন্ত যে কয়টি রান নেওয়া সম্পন্ন করতে পেরেছে সেটা কাউন্ট হবে। যে রানটি নিতে পারেনি অথবা নেওয়ার জন্য দৌড়াচ্ছিল সেটা কাউন্ট হবে না।’

ম্যাচের ৪৯.৪ ওভারের সময় মার্টিন গাপটিল যখন বল ছুড়েন তখন বেন স্টোকস এই প্রান্তে পৌঁছাতে পারেননি। আদিল রশিদও অপরপ্রান্তে তখনো পৌঁছাতে পারেননি। নিয়মানুয়ায়ী এই রানটি বাদ যাওয়ার কথা। কিন্তু কুমার ধর্মসেনা ও ইরাসমাস এই রানটিও ইংল্যান্ডকে দেন।

তথ্যসূত্র : ডেইলি মেইল, ক্রিকইনফো ও আরএনজেড।