মোহাম্মদ তারেকউজ্জামান খান মোহাম্মদ তারেকউজ্জামান খান
সম্পাদক ও প্রকাশক


‘আমার সময় অনিয়ম করলে ছাড় নয়’

ইসির নতুন সচিব




নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মো. আলমগীর। ইতোপূর্বে তিনি কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সচিব হিসেবে ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। মো. আলমগীর ১৯৮৬ সালে বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারে সহকারী কমিশনার হিসেবে সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চাকরি জীবন শুরু করেন। এরপর তিনি বিভিন্ন সময় দেশে ও বিদেশে সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। দায়িত্বর নেওয়ার পর ইসির বিভিন্ন দিক নিয়ে  তিনি উত্তরা নিউজকে সাক্ষৎকার দিয়েছেন।

উত্তরা নিউজ : নির্বাচন কমিশনের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড নিয়ে সাধারণ মানুষের অনেক অভিযোগ রয়েছে। আপনি দায়িত্ব নিয়ে কিভাবে এসব সামাল দিবেন?

মো: আলমগীর: আগে কি হয়েছে এটা আমি বলতে পারব না। আর আমার বলা ঠিকও হবে না। তবে আমি যখন থেকে ইসির সচিবের দায়িত্ব নিয়েছি, সে সময় থেকে কোন অনিয়ম বরদাস করছি না। কেউ কোন ধরনের অনিয়ম করলে ছাড় দেওয়া হবে না। নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের কর্মকাণ্ড ও নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সবকিছু সুষ্ঠু করতে যা কিছু করার করব। অমি যেখানে গিয়েছি সেখানে দেশের স্বার্থে কাজ করেছি।

উত্তরা নিউজ: আপনার সময়ে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ উপজেলা ভোট কেমন হয়েছে?

মো. আলমগীর: খুব ভালো। সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন হয়েছে প্রত্যেকটি কেন্দ্রেই। সামান্য একটু সমস্যা হয়েছিল। কয়েকটি ঘটনা ছাড়া বাকি উপজেলাগুলোতে ভোট মোটামুটি সুষ্ঠু হয়েছে। দু-একটি কেন্দ্রে সামান্য একটু গণ্ডগোল করার চেষ্টা করেছে দুষ্টু লোকজন। কিন্তু তারা সফল হয়নি। যেমন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার একটি কেন্দ্রে ইভিএম ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিল, সেটা পারেনি। তাদেরকে গ্রেফতারও করা হয়েছে। এরপর অল্প কিছুক্ষণের জন্য ভোটগ্রহণ স্থগিত ছিল। ইভিএম রি-ইনস্টল করে আবার ভোটগ্রহণ শুরু করা হয়। এছাড়া একটা উপজেলায় কিছু লোকজন জোর করে ভোট দেয়ার চেষ্টা করেছিল। তারা পাঁচটা ব্যালট পেপারে জোর করে ভোট দিয়েছিল। ওই পাঁচটা ভোট বাতিল করে দেয়া হয়েছে। তাদেরকে গ্রেফতারও করা হয়েছে।

উত্তরা নিউজ: ইভিএম মেশিন আনা হয়েছে স্বচ্ছ নির্বাচন করে দ্রুত রেজাল্ট পাওয়ার জন্য। কিন্তু ইভিএমে রেজাল্ট পেতে দেরি হচ্ছে এটার কারণ কি?

মো. আলমগীর: আগে দেরি হয়েছে কি না আমি বলতে পারব না। আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর সর্বশেষ উপজেলা ভোটের চারটা উপজেলার সবগুলো কেন্দ্রে ইভিএমে ভোট হয়েছে। ইভিএম কেন্দ্রগুলোর ভোটের রেজাল্ট অল্প কিছু দেরিতে এসেছে। কেন দেরিতে আসল ফলাফল কেন দ্রুত দিতে পারলাম না সে বিষয়ে ইতোমধ্যে ইভিএম সংশ্লিষ্ঠদের কাছে জবাব চেয়েছি। কি কারণে রেজাল্ট পেতে দেরি হচ্ছে এটা জানা দরকার।

উত্তরা নিউজ: ইসির মাঠ পর্যায়ে এনআইডি সেবায় অনেক ভোগান্তি হচ্ছে, ঘুষ নেওয়ার অভিযোগও পাওয়া যাচ্ছে এ বিষয়ে কি ব্যবস্থা নিচ্ছেন?

মো. আলমগীর: কোন প্রকার অনিয়ম আমি ছাড় দিব না। আমি কিছু দিনের মধ্যে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করব। বৈঠকে তাদের কাছে জবাব চাইব কেন মাঠ পর্যায় থেকে এত অভিযোগ আসছে। যারা সদ উত্তর দিতে পারবে না তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবো।

উত্তরা নিউজ: আপনার মূল্যবান সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ?

মো. আলমগীর:  উত্তরা নিউজকে ও ধন্যবাদ শুভকামনা।