আবরারকে হত্যায় ছাত্রলীগের তদন্ত কমিটি-প্রত্যক্ষদর্শী ফোনালাপ


» মোহাম্মদ তারেকউজ্জামান খান | সম্পাদক ও প্রকাশক | সর্বশেষ আপডেট: ০৮ অক্টোবর ২০১৯ - ০৯:৩৭:১৭ পূর্বাহ্ন

আবরারকে হত্যায় ছাত্রলীগের তদন্ত কমিটি ও প্রত্যক্ষদর্শীর ফোনালাপ হয়েছে। জানা যায়, শিবির সন্দেহেই পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে আবরারকে।

এতে ছাত্রলীগের ১০-১২ জন নেতাকর্মীর জড়িত থাকার খবর পাওয়া গেছে। এই নির্যাতনের নেতৃত্ব দিয়েছেন ও সবচেয়ে বেশি মারধর করেছে অমিত। রোববার (৫ অক্টোবর) রাত ৮ টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত চলে নির্যাতন।

এ হত্যার সাথে সংশ্লিষ্ট থাকার অভিযোগে ১১ জনকে বহিষ্কার করেছে ছাত্রলীগ। তারা হলেন, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল, সহ-সভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ, সাংগঠিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার, ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিওন, সাহিত্য সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, উপ-সমাজ সেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল, উপ-দপ্তর সম্পাদক মুজতবা রাফিদ, সদস্য মুনতাসির আল জেমি, এহেতসামুল রাব্বি তানিম ও মুজাহিদুর রহমান।

সোমবার (৭ অক্টোবর) রাতে সংগঠনটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টচার্য স্বাক্ষরিত সংবাদবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।