আত্রাইয়ে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি


» উত্তরা নিউজ I সারাবাংলা রিপোর্ট | | সর্বশেষ আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ - ১০:৩৬:৪৪ পূর্বাহ্ন

এমরান মাহমুদ প্রত্যয়, আত্রাই, নওগাঁ সংবাদদাতা : নওগাঁর আত্রাইয়ে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে। গত কয়েকদিন থেকে অবিরাম বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে আত্রাই নদীর পানি বিপদসীমার প্রায় ৫৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট। নদীর সাথে সাথে বিলাঞ্চলের পানিও ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে উপজেলার ৮ ইউনিয়নের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। ভেসে গেছে লক্ষ লক্ষ টাকার মাছের পুকুর।
এবারের বর্ষা মৌসুমের শুরুতে বন্যার পানিতে তছনছ হয়ে যায় মানুষের জীবন যাত্রা। সম্প্রতি ওই বন্যার পানি কমে যাওয়ায় পানিবন্দি মানুষ কিছুটা ঘুরে দাঁড়ানোর আগেই আবারও বন্যার পানিতে ডুবতে শুরু করেছেন তারা। এদিকে কয়েকদিন থেকে অবিরাম বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে আত্রাই নদীর পানি বৃদ্ধির ফলে বেড়ি বাঁধের কয়েকটি ভাঙন দিয়ে প্রবল বেগে পানি ঢুকছে বিলাঞ্চলে।
বিশেষ করে উপজেলার হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের ফকিরনি নদী ও আত্রাই নদীর জাতআমরুল নামক স্থানের ভাঙন দিয়ে পানি ঢুকে প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ পরিবার-পরিজন নিয়ে পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। অনেকের বসতবাড়ি বন্যা কবলিত হয়ে পড়ায় তারা ঘরবাড়ি ছেড়ে উঁচু ও নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিয়েছে।
পানিবন্দি হয়ে পড়েছে উপজেলার শাহাগোলা ইউনিয়নের উদনপৈয়, মিরাপুর, ফুলবাড়ি, পূর্বমিরাপুর, রসুলপুর, জাতোপাড়া, আহসানগঞ্জ ইউনিয়নের দমদমা,আমরুল কসবা, সিংসাড়া,কাশ্যবপাড়া। কালিকাপুর ইউনিয়নের রাইপুর, আটগ্রাম, দুর্গাপুর, ‘মদনডাঙ্গা, শলিয়া, হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের বান্দাইখাড়া, সন্যাসবাড়ি, হাটুরিয়া, দ্বীপচাঁদপুর, পাহাড়পুর, চকশিমলা, হাটকালুপাড়া, নন্দোনালি, কচুয়া, উত্তর বিল, উপজেলার গুড়নই, মালিপুকুরসহ অর্ধশত গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে এখন মানবেতর জীবন যাপন করছে।
এ ব্যাপারে হাটকালুপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুস শুকুর সরদার জানান, এবারের প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপের বন্যায় উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের মধ্যে আমার ইউনিয়নটি সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ এবং পানিবন্দি হাজার হাজার মানুষ। তারা এখন মানবেতর জীবন যাপন করছে। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলা এবং ত্রাণ তৎপরতা সচল রাখতে সকলের প্রতি তিনি অনুরোধ জানিয়েছেন।
আহসানগঞ্জ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো.আক্কাছ আলী জানান,বর্তমান বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে।ইউনিয়নের জাতআমরুল নামক স্থানে নদী ভাঙ্গনের ফলে এলাকার বসত বাড়ীতে পানি ঢুকে পড়ায় অসহায় হয়ে পড়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে অনেকে?ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ সচল রাখতে সকলকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে   আহ্বান জানান।
এদিকে বন্যাকবলিত মানুষদের প্রতি সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়ে আত্রাই উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ছানাউল ইসলাম উপজেলার বন্যাকবলিত বিভিন্ন গ্রামে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ বন্যার্ত কোন মানুষ যেন অণাহারে বা অর্ধাহারে না থাকে। সে নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা বন্যার্তদের সর্বাত্নক সহযোগিতা করছি। প্রয়োজনের আরও সহযোগিতা করা হবে। সেই সাথে স্থায়ীভাবে বন্যা নিয়ন্ত্রনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।
এ পর্যন্ত উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আত্রাই উপজেলার বন্যার্ত বানভাসী মানুষের মাঝে যে পরিমান ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল বলে জানিয়েছেন অসহায় বানভাসী মানুষেরা।