অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে বাংলাদেশকে আটে নামিয়ে দিল প্রোটিয়ারা


» উত্তরা নিউজ | অনলাইন রিপোর্ট | সর্বশেষ আপডেট: ০৭ জুলাই ২০১৯ - ১০:১১:৪২ পূর্বাহ্ন

ফাফ ডু প্লেসির সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়াকে বড় লক্ষ্য দিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। ডেভিড ওয়ার্নারের সেঞ্চুরি ও অ্যালেক্স ক্যারির ফিফটি লড়াইয়ে রেখেছিল অস্ট্রেলিয়াকে। তবে শেষ হাসি হেসেছে দক্ষিণ আফ্রিকাই। ১০ রানের জয় দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শেষ করেছে প্রোটিয়ারা।

ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে শনিবার আগে ব্যাট করতে নেমে ডু প্লেসির ১০০ ও ফন ডার ডুসেনের ৯৫ রানের সুবাদে ৬ উইকেটে ৩২৫ রান করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে এক বল বাকি থাকতে ৩১৫ রানে থামে অস্ট্রেলিয়া।

দিনের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে টপকে শীর্ষে উঠেছিল ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরে অস্ট্রেলিয়া থাকল দুই নম্বরেই। অর্থাৎ দ্বিতীয় সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে খেলতে হবে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের সঙ্গে। এর আগে প্রথম সেমিফাইনালে ভারতের প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড।

আর দক্ষিণ আফ্রিকা বাংলাদেশকে আটে নামিয়ে সাতে থেকে বিশ্বকাপ শেষ করল। দুই দলেরই সমান ৭ পয়েন্ট। তবে নেট রানরেটে এগিয়ে আছে প্রোটিয়ারা।

বড় লক্ষ্য তাড়ায় অস্ট্রেলিয়ার শুরুটা ভালো হয়নি। তৃতীয় ওভারেই নিজের শেষ ওয়ানডে খেলতে নামা ইমরান তাহিরের বলে শর্ট কাভারে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন অ্যারন ফিঞ্চ। খানিক বাদে আরেকটি বড় ধাক্কা খায় অস্ট্রেলিয়া। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন উসমান খাজা।

স্টিভেন স্মিথও টেকেননি। তাকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন ডুয়ান প্রিটোরিয়াস। ৩৩ রানে ২ উইকেট হারানোর পর তৃতীয় উইকেটে ওয়ার্নার ও মার্কাস স্টয়নিস ৬২ রানের জুটিতে প্রতিরোধ গড়েছিলেন। স্টয়নিস রান আউটে কাটা পড়লে ভাঙে এ জুটিও।

এরপর গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ডি ককের দুর্দান্ত ক্যাচে ফিরলে অস্ট্রেলিয়ার স্কোর হয়ে যায় ৪ উইকেটে ১১৯। এরপরই ওয়ার্নার-ক্যারি গড়েন বড় জুটি। ৯৩ থেকে ক্রিস মরিসকে টানা দুই চারে ওয়ার্নার তুলে নেন টুর্নামেন্টে তার তৃতীয় সেঞ্চুরি, ঠিক ১০০ বলে। ক্যারি তুলে নেন ফিফটি।

মরিসের দারুণ এক ক্যাচে ওয়ার্নার ফিরলে ভাঙে ১০৮ রানের জুটি। ১১৭ বলে ১৫ চার ও ২ ছক্কায় ওয়ার্নার করেন ১২২ রান।

লক্ষ্যের পেছনে ছুটে ক্যারি এরপরও চালিয়ে গেছেন। তবে পরপর দুই ওভারে প্যাট কামিন্স ও ক্যারির বিদায়ের পরই অস্ট্রেলিয়ার জন্য কাজটা আরো কঠিন হয়ে যায়।

খাজা পরে আবার ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন। খাজা ও মিচেল স্টার্ক মরিসের করা ৪৮তম ওভারে ১৭ রান তোলে নাটকীয় কিছুর আভাস দিয়েছিলেন। তবে শেষ দুই ওভারে ২৫ রানের সমীকরণটা অস্ট্রেলিয়া আর মেলাতে পারেনি। পরের ওভারে খাজা, স্টার্ক দুজনকেই ফেরান রাবাদা।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকাকে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দিয়েছিল এইডেন মার্করাম (৩৪) ও কুইন্টন ডি ককের (৫২) ৭৯ রানের উদ্বোধনী জুটি। পরে সেটিকে তিনশর চূড়ায় নিয়ে যান ডু প্লেসি ও ডুসেন।

৯৪ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ঠিক ১০০ রান করেন অধিনায়ক ডু প্লেসি। ৫ রানের জন্য সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপে পোড়া ডুসেন ৯৭ বলে ৪টি করে চার ও ছক্কায় ৯৫ রানের ইনিংসটি সাজান।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে মিচেল স্টার্ক ও নাথান লায়ন নেন ২টি করে উইকেট। এই ২ উইকেট নিয়ে বিশ্বকাপের এক আসরে স্বদেশী গ্লেন ম্যাকগ্রার ২৬ উইকেটের রেকর্ড স্পর্শ করেন স্টার্ক।

উত্তরা নিউজ-এস,এম,জেড