অভিযান ক্রমেই হাস্যকর হয়ে উঠেছে : রিজভী


» উত্তরা নিউজ | অনলাইন রিপোর্ট | সর্বশেষ আপডেট: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ - ০৯:১৩:০৫ পূর্বাহ্ন

সরকারের চলমান ক্যাসিনো, জুয়া ও মাদকবিরোধী অভিযান ক্রমেই হাস্যকর হয়ে উঠেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে এক বিক্ষোভ মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তবে এ মন্তব্য করেন তিনি।

কেরানীগঞ্জ দক্ষিণ থানা বিএনপি ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুব দল এ বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে। মিছিলটি বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যাললের সামনে থেকে শুরু হয়ে নাইটিঙ্গেল মোড় হয়ে আবার বিএনপি কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়। মিছিলে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরী, মীর হেলাল, যুবদল নেতা গোলাম মাওলা শাহীন, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা মোর্শেদ আলমসহ বিএনপি ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

রিজভী বলেন, ‘বর্তমান সরকার রহস্যজনক কারণে গত ১০ দিন আগে ক্যাসিনো, জুয়া ও মাদকবিরোধী অভিযান শুরুর পর আমরা বলেছিলাম এটা আইওয়াশ মাত্র। লোক দেখানোর জন্য এসব করা হচ্ছে। এখন সেটাই বাস্তবে দেখতে পাচ্ছেন আপনারা। ক্রমেই হাস্যকর হয়ে উঠেছে এই কথিত অভিযান। ঢাক-ঢোল-তবলা বাজিয়ে কয়েকটা যদু-মধু আটক করার পর এখন মন্ত্রীরা চিৎকার দিয়ে বিএনপির ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘পত্র-পত্রিকা-মিডিয়ায় যেসমস্ত গডফাদারের নাম আসছে তারা বহাল তবিয়তেই রয়েছে। কারণ, এই গডফাদারদের পৃষ্ঠপোষক বর্তমান মিডনাইট সরকার। আওয়ামী লীগ অবৈধভাবে ক্ষমতাসীন হওয়ার পর থেকে দেশের উন্নয়ন ঘটেছে শুধু মদ, জুয়া ক্যাসিনো, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজির। ঢাকায় কয়েকটি লোক দেখানো অভিযানেই তারা সীমাবদ্ধ। এই সামান্য অভিযানেই জনগণ দেখতে পেয়েছে আওয়ামী লীগ-যুবলীগ চুনোপুটি নেতাদের ঘরে ঘরে অবৈধ টাকার খনি। কাড়ি কাড়ি টাকা, সোনা-দানার খনি।’

রিজভী বলেন, ‘এখন সবার কাছে এটি স্পষ্ট যে, ব্যাংকে কোনো টাকা নাই। ভুয়া উন্নয়নের ঠেলায় তাদের প্রতিটি বাড়িই এখন টাকশাল। আওয়ামী লীগের অনেক নেতা বাড়িতে এখন টাকা গোনার মেশিন বসিয়েছেন। মানুষের সম্পদ লুট করে জমানো টাকা হাতে গোনা যায় না, তাই তাদের মেশিন লাগছে , এটা দশ বছরের শিশু থেকে শত বছরের বৃদ্ধ সবাই জেনে গেছে। দেশের সব মানুষ এখনও ভাত পায় না, লাখ লাখ মানুষের জীবন অভাব-অনটনে দুর্বিষহ আর আপনাদের হাজার হাজার নেতা বিদেশে লুটের টাকায় বাড়ি কিনছে। শুধু বিদেশেই নয়, দেশেও তারা অবৈধ ক্যাসিনো উৎসবে মেতে উঠেছে।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমান মিডনাইট সরকার দেশটাকে জুয়াড়িদের আড্ডাখানায় পরিণত করেছে। এখনও মূল অপরাধীরা অধরাই থেকে গেছে। এই দেশ বেশিদিন অনাচার-অবিচার-অন্যায়-দুর্নীতি সহ্য করেনি। এদের ভয়াবহ পরিণতি এগিয়ে আসছে।’

রিজভী আরও বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার ভয়াবহ অসুস্থতার পরও এই মিডনাইটের সরকার তার প্রতি আরও হিংস্র্র হয়ে উঠেছে। জনগণের প্রিয় নেত্রীকে অন্যায় ও অবিচারমূলকভাবে কারাগারে বন্দী রাখা হয়েছে। ব্যক্তিগত আক্রোশের শিকার দেশনেত্রী, বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী রেখে তিলে তিলে নিঃশেষ করতে পারলেই সরকারের লক্ষ্য পূরণ নিশ্চিত হবে। কিন্তু দেশের জনগণসহ জাতীয়তাবাদী শক্তি দেশনেত্রীকে কারামুক্ত করতে প্রবল সাহস ও উদ্যম নিয়ে রাজপথে নেমে আসবে।’

উত্তরা নিউজ/এস,এম,জেড