অবশেষে স্বজনদের কাছে ফিরলেন জমিলা বেগম


» উত্তরা নিউজ I সারাবাংলা রিপোর্ট | | সর্বশেষ আপডেট: ৩০ ডিসেম্বর ২০২০ - ০৪:২৬:২৭ অপরাহ্ন

নরসিংদী প্রতিনিধিঃ স্বজনদের কাছে ফেরার আকুতি জানিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে মানসিক ভারসাম্যহীন জমিলা বেগমের সংবাদ প্রকাশ করার পর অবশেষে স্বজনদের কাছে ফিরলেন ষাটোর্ধ্ব জমিলা বেগম।
কুমিল্লা জেলার বুড়িচং থানাধীন কুশাইয়ান গ্রামের আবদুল হাসেম জানান, তার স্ত্রী জমিলা বেগম অসুস্থ অবস্থায় প্রায় ছয় মাস পূর্বে নিখোঁজ হয়। তিনি এবং অন্যান্য নিকটতম আত্মীয় স্বজন দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন স্থানে তাকে খুঁজতে থাকে ।কিন্তু খোঁজ পায় নাই। গতকাল বিভিন্ন পত্রিকা ও ফেসবুকে ছবিসহ জমিলা বেগমের সংবাদ প্রকাশিত হলে তা তাদের দৃষ্টি গোচর হয়। তাৎক্ষণিকভাবে তারা উল্লেখিত নাম্বারে যোগাযোগ করে তাকে ফিরিয়ে নিতে রাতেই মৈশাদী গ্রামে ছুটে আসেন। আজ বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) মাধবদী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ সৈয়দুজ্জামান এবং কাঠালিয়া একতা মানব সেবা সংগঠনের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীদের উপস্থিতিতে তাদের নিকট নিখোঁজ হওয়া জমিলা বেগমকে বুঝাইয়া দেন। হারিয়ে যাওয়া জমিলা বেগমকে পেয়ে তার স্বামী এবং আত্মীয়-স্বজন খুশিতে আত্মহারা। তারা নরসিংদী জেলা পুলিশ এবং কাঠালিয়া একতা মানব সেবা সংগঠনকে ধন্যবাদ  এবং কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হন।
উল্লেখ্য গত শনিবার(২৬ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় নরসিংদী সদর উপজেলার কাঁঠালিয়া ইউনিয়নের মৈষাদী গ্রামে তীব্র শীতে জবুথবু হয়ে পড়ে থাকলে সমস্ত শরীরে মলমূত্র মাখা অবস্থায় বৃদ্ধাকে উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকালে তিনি কথা বলতে পারছিলেন না। তার চুলে ছিলো দীর্ঘদিনের জমানো ময়লায় জট পাঁকানো। এ অবস্থায় বৃদ্ধাকে দেখে কাঁঠালিয়া মানবসেবা সংগঠনের সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক আল-আমিন তাকে বাড়ি নিয়ে যান। পরিচর্যা এবং স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে তাকে অনেকটা সুস্থ করেছেন এরইমধ্যে। কিছুই স্পষ্ট বলতে পারছেন না ওই বৃদ্ধা। যতটুকু বলেন তা থেকে ধারণা করা হচ্ছে- তার গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলায়।
এমন মানবিক কাজের কথা শুনে অনেকে দেখতে আসেন বৃদ্ধাটিকে। বৃদ্ধার সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি অনেক কিছু বলতে চেষ্টা করেন কিন্তু কথার উচ্চারণ স্পষ্ট না হওয়ায় বৃদ্ধার কথা বুঝা জায়না। তিনি তার পরিবারের কাছে ফিরে যেতে হাউমাউ করে কাঁদতে থাকেন। পরে আল-আমিন তার সংগঠন ও স্থানীয় সাংবাদিকদের বিষয়টি অবগত করেন। খবর পেয়ে মাধবদী থানা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার শাহিন ও কাঁঠালিয়া মানবসেবা সংগঠনের সভাপতি সাংবাদিক ছিদ্দিকুর রহমান ইমন সহ সংগঠনের কয়েকজন কর্মী আল-আমিন এর বাড়িতে বৃদ্ধাকে দেখতে যান।
সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) সকালে সংগঠনের কর্মীরা বৃদ্ধা জোবেদা বেগমকে চিকিৎসা দিতে আড়াইহাজার সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। ওই হাসপাতালে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক জোবেদা বেগমকে ঢাকায় মানসিক হাসপাতালে ভর্তি করার জন্য চিকিৎসাপত্র লিখে দেন।
চিকিৎসক আরিফ জানান, বৃদ্ধাকে প্রাথমিকভাবে ওষুধ লিখে দেয়া হয়েছে। তবে শরীরে উচ্চ রক্তচাপের মাত্রা ১৯০/১০০ ও মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।
হাসপাতালে দেখতে যান, বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি) এর সাংকেতিক খবর উপস্থাপক আরিফুল ইসলাম। তিনি জানান বৃদ্ধাটি কথা বলতে না পাড়ায় আমি কাঁঠালিয়া মানবসেবা সংগঠনের সভাপতির ফোন পেয়ে ইশারা ভাষায় কথা বলতে চেয়েছি। কিন্তু তিনি শ্রবন প্রতিবন্ধী নন, উন্নত চিকিৎসা পেলে কথাবার্তা স্বাভাবিক হয়ে উঠবে।
 ষাটোর্ধ্ব এক বৃদ্ধাকে কুড়িয়ে পাওয়া গেছে বিষয়টি মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দুজ্জামানকে অবগত করা হলে তিনি মাধবদী থানার উপ-পরির্দশক আব্দুর রাজ্জাককে বৃদ্ধার খোঁজ খবর নেয়ার জন্য আল-আমিন এর বাড়িতে পাঠান। এসময় মাধবদী থানার এসআই আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বৃদ্ধাটিকে বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার জন্য সবাই চেষ্টা করছেন। আমরাও পুলিশের পক্ষ থেকে চেষ্টা করছি।
কাঁঠালিয়া মানবসেবা সংগঠনের কর্মীরা বৃদ্ধাটিকে বাড়ি পৌঁছে দিতে সোশ্যাল মিডিয়ায় বৃদ্ধাটির ছবি সহ পোস্ট দেওয়া সহ সংশ্লিষ্ট সরকারি দপ্তরের সহযোগিতা কামনা করে নিম্নে প্রদত্ত ০১৮৫৮৮১৯১৩৫, ০১৭২২১২৩৩৯০, ০১৭১৩৮২৫৮১৩ ফোন নাম্বারগুলোতে তার পরিচিত স্বজনদের যোগাযোগ করার আহ্বান জানালে তার পরিবারের সদস্যরা তা দেখতে পেয়ে উল্লেখিত নাম্বারে যোগাযোগ করে মাধবদী থানা পুলিশ ও কাঠালিয়া একতা মানবসেবা সংগঠনের সহায়তায় বৃদ্ধাকে তার বাড়িতে নিয়ে যায়।