অপরিচ্ছন্ন রান্নাঘর, লোকবল সংকট জবির একমাত্র ক্যান্টিন


» উত্তরা নিউজ | অনলাইন রিপোর্ট | সর্বশেষ আপডেট: ৩০ জুলাই ২০১৯ - ১১:৩৪:৫২ পূর্বাহ্ন

সংস্কার কাজ শেষে উদ্বোধন করা হলেও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র ক্যাফেটেরিয়ার সমস্যা শেষ হয়নি। অপরিচ্ছন্ন রান্নাঘর, লোকবল সংকট, খাদ্য ঘাটতিসহ নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত জবির ক্যাফেটিরিয়া।

সোমবার দেখা যায়, খাবারের জন্য শিক্ষার্থীরা দাঁড়িয়ে থাকলেও খাবার শূন্য ক্যাফেটিরিয়া । সিঙ্গাড়া ভাজা হলেও কয়েক মিনিটের মাঝেই তা শেষ। খাবার না পেয়ে বাধ্য হয়ে ফিরে যাচ্ছে শিক্ষার্থীরা।

রান্নাঘরের ভেতরে প্রবেশ করলে দেখা যায় বরাবরের মতোই অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ, প্রতিটি খাবারের আশেপাশে তেলাপোকার আনাগোনা। এছাড়াও পুরনো-ভাঙ্গা গ্যাসের চুলোর কারণে রান্না হয় ধীর গতিতে, যে কারণে শিক্ষার্থীদের খাবারের জন্য লম্বা সময় অপেক্ষা করতে হয়।

ক্যাফেটিরিয়ার কর্মচারীরা জানায়, লোকবল সংকটের কারণে খাবার রান্না ও পরিবেশনে তুলনামূলক বেশি সময় লাগে তাদের। গ্যাসের চুলার সমস্যা,  টিনের চালে ফুটো থাকার কারণে বৃষ্টিতে বেশ ঝামেলায় পড়তে হয়।

এদিকে দেখা যায়, পুরো ক্যান্টিনে রাঁধূনীসহ মোট কর্মচারীর সংখ্যা মাত্র ৮/৯ জন । এত অল্প সংখ্যক জনবলে তাদের সব কাজ করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

পরিসংখ্যান বিভাগের ১৩তম আবর্তনের শিক্ষার্থী আলিফ মাহামুদ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘ক্যাফেটিরিয়ায় দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকেও খাবার না পেয়ে ফিরে এসেছি। খাবারই যদি না পেলাম তাহলে সংস্কারের কী প্রয়োজন।’

অপর শিক্ষার্থী সমাজকর্ম বিভাগের সাঈদ বলেন, ‘অধিকাংশ শিক্ষার্থীই মেসে থাকে, সবসময় কাজের লোক আসে না। ক্যাফেটিরিয়ার খাবারের উপরই নির্ভর করতে হয় আমাদের। যদি অস্বাস্থ্যকর রান্নাঘরেই রান্না করতে হয়, তবে সংস্কার কেনো?’

এ বিষয়ে ক্যাফেটিরিয়া পরিচালক আমজাদ হোসেন বলেন, ‘আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জানিয়েছি। প্রশাসন দ্রুত রান্নাঘরও ঠিক করে দিবে বলে জানিয়েছে। তবে, কবে ঠিক করবে সে বিষয়ে কিছু বলা হয়নি।’

এ বিষয়ে ট্রেজারার সেলিম ভূঁইয়া বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা আগে আসতো না, এখন সংস্কারের পর শিক্ষার্থীরা আসছে, এ কারণে খাবার সংকট হচ্ছে। অচিরেই রান্নাঘরসহ সকল সমস্যার যত দ্রুত সম্ভব সমাধান করা হবে।’