অনলাইন ক্লাসের সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে – ইশা ছাত্র আন্দোলন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।


» এইচ এম মাহমুদ হাসান | | সর্বশেষ আপডেট: ২৩ এপ্রিল ২০২০ - ০১:০১:১৯ অপরাহ্ন

 

করোনা মহামারীর এই সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষের গৃহীত অনলাইন ক্লাসের সিদ্ধান্তকে অযৌক্তিক আখ্যায়িত করে এ ধরণের সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানিয়েছেন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মাহমুদুল হাসান ও সাধারণ সম্পাদক জামালুদ্দীন মুহাম্মাদ খালিদ। আজ সকালে এক যৌথ বিবৃতিতে তারা এই দাবি জানান।

নেতৃদ্বয় বলেন, গত ২০ এপ্রিল মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিনদের সাথে অনলাইন ভার্চুয়াল মিটিংয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান এ সিদ্ধান্ত নেন। যা বর্তমান পরিস্থিতিতে কখনোই পুরোপুরি বাস্তবায়ন যোগ্য নয়।

তারা আরো বলেন, করোনা মহামারীর কারণে দেশে জাতীয় সংকট তৈরী হয়েছে। দেশের মানুষ তাদের মৌলিক চাহিদা খাদ্য ও চিকিৎসার পর্যাপ্ত সরবরাহ পাচ্ছে না। গৃহবন্দি থাকার কারণে দেশের সাধারণ মানুষের একটি বড় অংশের উপার্জনের পথ রুদ্ধ হয়ে পড়েছে। চিকিৎসকদের নিরাপত্তা সংকট তৈরী হওয়ায় তাদের মাঝে ভীতি ছড়িয়ে পড়েছে। এতে অনেক অসুস্থ ব্যাক্তি তাদের যথাযথ চিকিৎসাসেবা পাচ্ছে না। কৃষকদের ধান কাঁটার জন্য পর্যাপ্ত জনশক্তি সরবারহ করা যাচ্ছে না। অনেক মানুষ দুমুঠো খাবারের জন্য গৃহবন্দি অবস্থা থেকে বেরিয়ে এসে বিক্ষোভ করছে।

এসয় তারা পবিত্র রমজান মাসে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেন।

তারা উল্লেখ করেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ শিক্ষার্থীর পারিবারিক অবস্থা স্বচ্ছল নয়। মহামারীর এ অবস্থায় তাদের আর্থিক অনটন অন্যান্য সময়ের তুলনায় বেড়ে গেছে অনেক গুণ। ডাকসু সহ বিভিন্ন সংগঠন তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী সহয়তার চেষ্টা করলেও তা পুরোপুরি চাহিদা পুরণে অনেকটাই ব্যার্থ। এমন নাজুক পরিস্থিতিতে অনলাইন ক্লাস কর্তৃপক্ষের বাহুল্যপনা ছাড়া আর কিছু নয়।

তাছাড়াও অধিকাংশ শিক্ষার্থী গ্রামে থাকায় তাদের ইন্টারনেট সংযোগের সুবিধা অপর্যাপ্ত। ফলে শিক্ষার্থীদের একটি বড় অংশ অনলাইন ক্লাসের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবে।

তারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানান, সার্বিক অবস্থা বিবেচনায় এধরণের অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত বাতিল করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফান্ড থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অসহায় শিক্ষার্থীদের সহয়তায় এগিয়ে আসুন।