অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছে ৬৩ বিশ্ববিদ্যালয়


» উত্তরা নিউজ | অনলাইন রিপোর্ট | সর্বশেষ আপডেট: ২৯ এপ্রিল ২০২০ - ০৫:১৯:২৭ পূর্বাহ্ন

করোনাভাইরাসের প্রকোপে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো দীর্ঘ ছুটিতে থাকায় শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছে দেশের ৬৩টি বিশ্ববিদ্যালয়। এরমধ্যে ৫৬টি বেসরকারি ও বাকি ৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়।

দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অনলাইনে ক্লাস পরিচালনা করছে কিনা— তা জানতে চেয়ে সম্প্রতি চিঠি দেয় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। ওই চিঠির পর দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ইউজিসিকে তাদের তথ্য জানায়। জানতে চাইলে ইউজিসির পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের পরিচালক ও সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. ফেরদৌস জামান  বলেন, ‘সম্প্রতি আমরা জানতে চেয়েছিলাম দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছে কিনা? বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থেকে তথ্য পেয়েছি। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৫৬টি এবং ৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছে।’

ইউজিসি সূত্রে জানা গেছে, গত ২১ এপ্রিল সব বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে তথ্য চাওয়া হয়। অনলাইনে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে কিনা, কতগুলো বিভাগে নেওয়া হচ্ছে এবং ক্লাসে শিক্ষার্থীর উপস্থিতির হার কত এসব বিষয় জানতে চায় ইউজিসি।

ওই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তথ্য দেয় ইউজিসিতে। তথ্য অনুযায়ী, দেশের ৫৬টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ৭টির মধ্যে রয়েছে ঢাকা, জাহাঙ্গীরনগর, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি) ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

ইউজিসি সূত্রে জানা গেছে, অনলাইনে ক্লাস নেওয়া বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি ৫০ থেকে ৯০ শতাংশ। ইউজিসির পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের পরিচালক ও সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. ফেরদৌস জামান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘কোনও বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫০, কোনও বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬০, আবার কোনও বিশ্ববিদ্যালয়ে ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থী অনলাইনে ক্লাসে অংশ নিয়েছে। মোট বিশ্ববিদ্যালয় ও উপস্থিত শিক্ষার্থীর গড় করে দেখা গেছে ৭০ শতাংশ শিক্ষার্থী অনলাইনে ক্লাসে অংশ নিয়েছে। ইউজিসি সূত্রে জানা গেছে, অনলাইনে ক্লাসে অংশ নেওয়ার হার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে বেশি।

উল্লেখ্য, গত ২৩ মার্চ অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চালাতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে উৎসাহিত করে ইউজিসি। গত ২১ এপ্রিল সর্বশেষ পরিস্থিতি জানতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে চিঠি দিয়ে তথ্য চায় তারা।