afganistan

আফগানিস্তান থেকে চলতি বছরে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হলে দেশটিতে আরো খারাপ অবস্তা হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেই সাথে এ বছর অনুষ্ঠেয় আফগান প্রেসিডেন্ট নির্বাচনও সহিংসতাপূর্ণ হতে পারে।

আফগানে মার্কিন বাহিনীর সাথে ১৭ বছর ধরে চলছে লড়াই। এ লড়াইয়ে জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা নেই দেখে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তালেবানের সাথে শান্তি চুক্তি নিয়ে বসার আগেই আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন।

দেশটি থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হলে তালেবান আক্রমণ আরো জোরদার হতে পারে। এই প্রেক্ষাপটে আফগানরা দেশটিতে সঙ্ঘাত তীব্রতর হওয়ার আশঙ্কা করছেন।

কাবুলের ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র মোহাম্মদ হোসাইন বলেন, পরিস্থিতি দিন দিন আরো খারাপ হচ্ছে। এখনকার চেয়ে বরং চার-পাঁচ বছর আগের পরিস্থিতি আরো ভালো ছিল। ফলে কাবুল যখন শান্তি থাকে, তখনো আমরা কখন হামলা হবে প্রতি মুহূর্ত তার আশঙ্কায় থাকি।

গত ডিসেম্বরে এশিয়া ফাউন্ডেশনের একটি জরিপে বলা হয়, ৬০ শতাংশ আফগান নাগরিক মনে করে, দেশ ভুল পথে চলছে। এক বছর আগেও পরিস্থিতি একই রকম ছিল না। কিছু সূচকে দেখা গেছে আফগানিস্তানের নিরাপত্তা সূচক ক্রমেই নিম্নগামী হচ্ছে।

আফগানিস্তানে ২১ সেনা নিহত
আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় সারে পুল প্রদেশে তালেবানের হালমায় দেশটির ২১ সেনা সদস্য নিহত ও ২৩ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার এ খবর নিশ্চিত করেছেন প্রদেশর এক সরকারী কর্মকর্তা।

সারে পুল প্রদেশের গভর্নরের মুখপাত্র জবিউল্লাহ আমানি বলেন,‘সারে পুল প্রদেশের রাজধানীর কাছে অবস্থিত কয়েকটি তেলকূপের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার জন্য তালেবান এই হামলা চালায়। হামলায় নিহত ২১ জনের মধ্যে পুলিশ ও গোয়েন্দা সদস্য রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘তালেবান এখানো তাদের শক্তি বাড়িয়ে চলেছে। এর মোকাবেলায় শহরে যত সেনা ও পুলিশ ছিল তা মোতায়েন করা হয়েছে তবে তা যথেষ্ট নয়। এ অবস্থায় শহরের লোকজন খুবই উদ্বেগের মধ্যে রয়েছে।’

জবিউল্লাহ আমানি জানান, ‘এখনো সারে পুলের আশপাশে শত শত তালেবান যোদ্ধা অবস্থান করছে এবং বাড়তি সেনা না পাঠালে তালেবানের হাতে শহরটির পতনের আশংকা রয়েছে।’



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / জি/টি

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা