জাতীয়

EC-BD

বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আগামী একাদশতম জাতীয় সংসদ নির্বাচন পেছোনোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

আগামী ২৩ ডিসেম্বরের পরিবর্তে একাদশ সংসদ নির্বাচন ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের তারিখ ২ ডিসেম্বর, প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৯ ডিসেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান থেকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, বিকল্পধারা, বিএনপিসহ অনেক রাজনৈতিক দল নির্বাচনে আসবে জেনে আমরা স্বস্তিবোধ করছি।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, অনেক রাজনৈতিক দল আবেদন করেছে নির্বাচন পেছানোর জন্য। গতকাল অনেক সাংবাদিকেরা আমাকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, নির্বাচন পেছানো হবে কি না। আমরা গতকাল রাতেও কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারিনি। পরে সকালে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি নির্বাচন পেছানোর।

ইভিএম সম্পর্কে সিইসি বলেন, ইভিএমের অনুকূলে যে আইন ও বিধি হয়েছে তাই নিয়ে আমরা এগিয়ে যেতে চাই। ইভিএম দেখুন, পরীক্ষা করুন, ভুল থাকলে আমরা তা সুধরে নিব। কিন্তু পিছিয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই।

সিইসি বলেন, এর আগে বিভিন্ন নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা হয়েছে। সেখানে কোনো প্রশ্ন ওঠেনি। আমরা ইভিএমের মাধ্যমে ভোটাধিকার সুরক্ষা করতে চাই।

নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম বলেন, ইভিএম এ ভোট দিতে ১০০ ভাগ নিশ্চয়তা দেওয়া হবে। যার ভোট সে দিতে পারবে। ইভিএমে শতভাগ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা হয়েছে।      

অনুষ্ঠানে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম, নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম প্রমুখ।

এর আগে গত ৮ নভেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল আগামী ২৩ ডিসেম্বর। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ১৯ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের দিন ২২ নভেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৯ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়।

বিস্তারিত

আন্তর্জাতিক

yemen-arab-war

ইয়েমেনে হুদাইদাহ শহরে সরকারি বাহিনীর সঙ্গে হুথি বিদ্রোহীদের সংঘর্ষে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪৯ জন নিহত হয়েছে।

সংঘর্ষে ১১০ হুথি বিদ্রাহী ও ৩২ সরকার বাহিনী নিহত হয়েছে। এদিকে সাত বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে বলে একটি সামরিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। এ নিয়ে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি।

এর আগে সৌদি সমর্থিত জোটের সঙ্গে সরকারি বাহিনী হুথি বিদ্রোহীদের লক্ষ্য করে কয়েক দফা বিমান হামলা চালিয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে ইয়েমেনের রাজধানী সানা দখল করে নেয় হুথি বিদ্রোহীরা। ২০১৫ সালে সৌদি জোট ইয়েমেনে অভিযান শুরু করে।

চলতি বছরের জুনে হুদাইদাহ দখলের জন্য নতুন করে অভিযান শুরু করে সৌদি জোট। এরপর থেকেই দু’পক্ষের লড়াই চলছে। এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বেসামরিক নাগরিকরা।

প্রতি ১০ মিনিটে একজন শিশু প্রাণ হারাচ্ছে ইয়েমেনে। ইয়েমেন চরম মানবিক সঙ্কট চলছে। দেশটির অনেক মানুষ দুর্ভিক্ষতে মারা যাচ্ছে। বিশেষ করে শিশুরা ক্ষতিগ্রস্থ বেশি হচ্ছে বলে জানায় জাতিসংঘ । তথ্য: আল জাজিরা।

বিস্তারিত

উত্তরার খবর

uttara-chintai

 

রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানার ৩ নম্বর সেক্টরস্থ এসবি প্লাজার সামনে প্রকাশ্যে ছিনতাইকারীদের কবলে পড়েন তানিয়া তাসলিমা নামে এক নারী ব্যবসায়ী। ব্যক্তিগত গাড়িতে করে অফিসে যাওয়ার সময় তিনি পেশাদার একদল ছিনতাইকারীদের কবলে পড়েন।
শনিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে উত্তরা ৩ নম্বর সেক্টরের এসবি প্লাজার সামনে এ ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে।
ব্যবসায়ী তানিয়া তাসলিমা রোববার সন্ধ্যায় অভিযোগ করে জানান, শনিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে উত্তরা পশ্চিম থানার ৩ নম্বর সেক্টরের এসবি প্লাজার সামনে যানজটে পড়েন। এ সময় তিনি ছিনতাইয়ের শিকার হন। ঘটনার সময় আমার গাড়ির জানালার গ্লাস একটু নিচে নামানো ছিল। ঠিক সে জায়গা দিয়ে অজ্ঞাত দুই পুরুষের একজন আমাকে লক্ষ্য করে আগ্নেয়াস্ত্র ধরে। ছিনতাইকারী বয়স ২৫ থেকে ৩০ বছর । তারা আমার ব্যবহৃত স্যামসাং এস-৮ মোবাইল ফোন সেটটি কমান্ডো স্টাইলে ছিনতাই করে নিয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়। ফোনটির মূল্য প্রায় ৭০ থেকে ৭৫ হাজার টাকা। পালানোর সময় ছিনতাইকারী অপর ব্যক্তির কাছে একটি ছুরিও ছিল বলে জানান এক নারী ব্যবসায়ী তানিয়া তাসলিমা।
এ বিষয়ে ছিনতাইয়ের ঘটনার পর উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী এ নারী ব্যবসায়ী। পুলিশ তাকে জানিয়েছে, বিষয়টি তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
এ বিষয়ে জানতে উত্তরা পশ্চিম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলী হোসেন খানকে ফোন করলে তিনি ফোনটি রিসিভ করেননি। তাই ওসির বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।
পরবর্তীতে উত্তরা পশ্চিম থানায় ফোন করে ছিনতাইয়ের ঘটনাটি জানতে চাইলে থানার ডিউটি অফিসার নাম প্রকাশ না করার শর্তে এ প্রতিবেদককে জানান, ছিনতাইয়ের ঘটনাটি শুনেছি। তবে, এখনও পর্যন্ত থানায় মামলা রেকর্ড হয়নি।

 

বিস্তারিত

বিনোদন

uttara-7

জঙ্গীবাদ সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য প্রতিরোধে চাই সাংস্কৃতিক আন্দোলন। এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট উত্তরা-এর আয়োজনে ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত হয় তিন দিন ব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব।
৮ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকাল ৪ টায় উত্তরার রবীন্দ্র স্মরণি মুক্ত মঞ্চে তিন দিন ব্যাপী এই সাংস্কৃতিক উৎসবের শুভ উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট নাট্যকার ও নির্দেশক মামুনুর রশীদ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, , লেখক, গবেষক ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট উত্তরার সভাপতি মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণসংগীত সমন্বয় পরিষদের সভাপতি ফকির অলমগীর, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কামাল বায়েজিদ এবং পথ নাটক পরিষদের সাধারণ সম্পদক আহাম্মদ গিয়াস।


সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট উত্তরা-এর সহ-সভাপতি শফিউল গণির সঞ্চালনায় উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট উত্তরা-এর সাধারণ সম্পাদক ড. সোলায়মান কবির।


সকল বক্তাগণ এই আয়োজনের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন,”জাতীয় নির্বাচন নিয়ে অস্থির সময় অতিবাহিত হচ্ছে, নৈরাজ্যের সম্ভাবনায় দেশবাসী উৎকন্ঠার মধ্য দিয়ে সময় অতিবাহিত করছে সেই সময়ে এ ধরণের বক্তব্যকে সামনে এনে তিনদিনের আয়োজন খুবই বাস্তসম্মত ও সময়োপযোগী, সংস্কৃতিকর্মীদের দায় পালনের উৎকৃষ্ট উদাহরণ। বক্তাগণ মুক্তিযুদ্ধের আদর্শসমৃদ্ধ বাংলাদেশ নির্মাণে সংস্কৃতিকর্মীদের বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখার গুরুত্বারোপ করেন। পাশাপাশি সকলের বক্তব্যেই উঠে আসে উত্তরা ও ঢাকা শহরের গরুত্বপূর্ণ এলাকাসমূহে সংস্কৃতি চর্চার অবকাঠামোগত সুযোগ-সুবিধা তৈরী করা, সংস্কৃতির ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় বাজেট বৃদ্ধি করা, সংস্কৃতিকর্মীদের জীবনমান সুরক্ষা করার লক্ষ্যে উদ্যোগ গ্রহণ করার জোর দাবী জানান। সংস্কৃতিচর্চাকে পেশা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে এর সুরক্ষায় বাজেট প্রণয়নের গুরুত্ব তুলে ধরেন। সভাপতি মিজানুর রহমান আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ, উপস্থিত দর্শকশ্রোতা ও অংশগ্রহণকারী সকল শিল্পী কলাকুশলী এবং উৎসবের সহযোগীতা করার জন্য মাননীয় সংস্কৃতিমন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান নূর এম.পি কে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আলোচনার সমাপ্তি করেন।


উদ্বোধনী আলোচনা শেষে শুরু হয় মনোজ্ঞ ও বর্নাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পর্ব। সাংস্কৃতিক পর্বে সংগীত পরিবেশন করেন গণসংগীত সমন্বয় পরিষদের সহ সভাপতি, শিল্পী কাজী মিজানুর রহমান, এম.এ রাকীব,নমিতা দেববর্মা সাথী, অগ্নী অতুলনীয়া নূর, একক আবৃত্তি করেন ডালিয়া আহমেদ, মাসকুরে সাত্তার কল্লোল, আহসান উল্লাহ তমাল, ফারজানা মালিক নিম্মী, আশরাফ-উল-আলম সবুজ, সৈয়দ এরশাদুল হক মিলন, দীপক ঘোষ, মুনিরুল ইসলাম, শফিউল গণি, সুমতি পাল, রাজিয়া জামান নাফিসা, রায়হান নাফিস, দলীয় আবৃত্তি করেন কবিতাশ্রম, দলীয় সংগীত পরিবেশনা করেন প্রার্থনা ললিতকলা একাডেমী উত্তরা ঢাকা, দলীয় নৃত্য পরিবেশন করেন তাল কালচারাল সোসাইটি, নুপুর নৃত্য একাডেমী, আনন্দধারা, মূকাভিনয় করেন মাইম আর্ট ইউনিট, নাটকের দল গতি থিয়েটারের উপস্থাপনায় ছিলো নাটক “মামার আগমন”, কাব্যবিলাশের নাটক “হয়ে গেলো নির্বাচন”। প্রতিদিন বিকাল ৪টায় শুরু হয়ে গভীর রাত পর্যন্ত এই সাংস্কৃতিক উৎসব চলে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত।


উল্লেখ্য, উত্তরায় এই প্রথম বারের মতো ‘উত্তরা সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৮’ শিরোনামে আয়োজন করা হয় তিন দিন ব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব।

বিস্তারিত

খেলাধুলা

musfiqur-rahim-enjoy

মিরপুর টেস্টর চালকের আসে প্রথম দিন থেকেই নিয়ে নিয়েছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ। তবে প্রথম দিনের খেলা শেষে শক্ত অবস্থানে দাঁড়িয়ে থাকলেও দ্বিতীয় দিনের উপর ছিল নির্ভরশীলতা। সোমবার দ্বিতীয় দিনটি আসলে শুধুই নিজেদের করেছে টাইগাররা। মুশফিকুর রহীমের ইতিহাস গড়া ডাবল সেঞ্চুরিতে দিনের তিন সেশনেই জিম্বাবুয়েকে রেখেছে কোণঠাসা করে।

 

দুই ম্যাচ সিরিজের শেষ টেস্টে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। সোমবার ম্যাচের দ্বিতীয় দিন ৭ উইকেটে ৫২২ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে টাইগাররা। ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে মুশফিকুর রহীম ২১৯ রানে অপরাজিত থাকেন। দ্বিতীয় টেস্ট ফিফটির দেখা পাওয়া মেহেদী হাসান মিরাজ অপরাজিত ছিলেন ৬৮ রানে।

ইনিংস ঘোষণা করে তৃতীয় সেশনের মাঝামাঝি সময়ে জিম্বাবুয়েকে ব্যাট করার সুযোগ করে দেয় স্বাগতিকরা। মোট ১৮ ওভার ব্যাট করেছে তারা। ২৫ রান যোগ করতে দিনের শেষ ভাগে এসে হারিয়েছে ১ উইকেট। এখনো বাংলাদেশের চেয়ে ৪৯৭ রানে পিছিয়ে জিম্বাবুয়ে।

আগের দিনের ১১১ রান নিয়ে ব্যাটিং শুরু করে ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নেওয়া মুশফিক দিন শেষে অপরাজিত থেকে যান। মুশফিকের এটি দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি। টেস্ট ইতিহাসে কোনো উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের দুটি ডাবল সেঞ্চুরি এটিই প্রথম।

বাংলাদেশকে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি উপহার দিয়েছিলেন মুশফিক, ২০১৩ সালে। এই ডাবল সেঞ্চুরিতেও একটা প্রথম জন্ম দিলেন তিনি। বাংলাদেশের পক্ষে কোনো ব্যাটসম্যানের একাধিক ডাবল সেঞ্চুরিও এটিই প্রথম।

 

মিরপুর টেস্টের প্রথম দুই দিনে মোট ছয় সেশনের পাঁচটিতেই থাকল বাংলাদেশের আধিপত্ব। জিম্বাবুয়ে থাকল কোণঠাসা হয়ে। রোববার দিনের প্রথম সেশনটা ছিল শুধু জিম্বাবুয়ের। আরো নির্দিষ্ট করে বললে প্রথম ঘন্টাটা। পরের চারটি সেশনই নিজেদের করেছে টাইগাররা। ধীরে ধীরে ম্যাচের ফলও কি লেখা হয়ে যাচ্ছে? মুমিনুল হক আগের দিন বলে গিয়েছিলেন, প্রথম ইনিংসই গড়ে দেবে ম্যাচের ভাগ্য। পাঁচ শতাধিক স্কোর গড়ে বাংলাদেশ অবশ্য নিজেদের এগিয়ে থাকার দাবি করতেই পারে। মুমিনুল যেমন বলেছিলেন এই উইকেটে চারশ-সাড়ে চারশ রানই লড়াই করার মতো।

আগের দিনের ৫ উইকেটে ৩০৩ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। ১১১ রানে অপরাজিত মুশফিকের সঙ্গে শূন্য রানে শুরু করেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ষষ্ঠ উইকেটে এই দুজনের জুটি ছিল ৭৩ রানের। তার চেয়েও বড় কথা দিনের প্রথম সেশনটা অক্ষত থেকে পার করেন দুজন। বলতে গেলে দ্বিতীয় দিনের ভালোর শুরুটা সেখানেই।

 

দ্বিতীয় সেশনে বাংলাদেশ মাহমুদউল্লাহ ও আরিফুলের উইকেট হারায়। তবে নয় নম্বরে ব্যাট করতে নামা মেহেদী হাসান মিরাজ খেললেন টেস্ট ক্যারিয়ারে নিজের সর্বোচ্চ ৬৮ রানের ইনিংস। অস্টম উইকেটে ১৪৪ রানের অবিচ্ছিন জুটি হয়েছে মুশফিক-মিরাজের।

যার বদৌলতে রেকর্ডগড়া ডাবল সেঞ্চুরির দেখা পেয়ে যান মুশফিক। ৪৮১ বল খেলে অপরাজিত ২১৯ রান করেন মুশফিক। ১৮টি চারের সঙ্গে ১টি ছক্কা হাঁকান তিনি। মিরাজের ১০২ বলের ইনিংসে ছিল ৫টি চার ও ১টি ছক্কা। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটিটি তিনি পূরণ করেন ছক্কা মেরেই।

চা-বিরতির পর একসাথে তিন ল্যান্ডমার্ক পূরণ হয় টাইগারদের। মুশফিক ডাবল সেঞ্চুরি পূরণ করেন। মিরাজ পান ফিফটি। আর বাংলাদেশ পেরোয় করে ৫০০ কোটা । এনিয়ে আটবার টেস্টে বাংলাদেশের ইনিংস পাঁচশ পেরুলো। এদিনের রানটি নিজেদের ইতিহাসে পঞ্চম সর্বোচ্চ। সর্বোচ্চ স্কোরটি ৬৩৮, গলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। যেম্যাচে বাংলাদেশের পক্ষে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি উপহার দেন মুশফিক।

 

জিম্বাবুয়ের হয়ে সর্বাধিক ৫ উইকেট নিয়েছেন জার্ভিস। ১টি করে উইকেট নেন তেন্দাই চাতারা ও ডোনাল্ড তিরিপিানো।

শেষ বিকেলে ব্যাট করতে নামা জিম্বাবুয়ের একটি উইকেট তুলে নেন তাইজুল ইসলাম। ১৪ রান করে ফিরেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। ১০ রান করা ব্রায়ান চারি ও ০ রান নিয়ে নাইটওয়াচ ম্যান তিরিপানো মঙ্গলবার তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করবেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

দ্বিতীয় দিন শেষে

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৫২২/৭ ডিক্লে. (১৬০ ওভার) (লিটন ৯, ইমরুল ০, মুমিনুল ১৬১, মিথুন ০, মুশফিক ২১৯*, মাহমুদউল্লাহ ৩৬, আরিফুল ৪, মিরাজ ৬৮*; জার্ভিস ৫/৭১, চাতারা ১/৩৪, তিরিপানো ১/৬৫, রাজা ০/১১১, উইলিয়ামস ০/৮০, মাভুতা ০/১৩৭, মাসাকাদজা ০/৭)।

জিম্বাবুয়ে ১ম ইনিংস: ২৫/১ (১৮ ওভার) (মাসাকাদজা ১৪, চারি ১০*, তিরিপানো ০*; মোস্তাফিজ ০/১১, খালেদ ০/৬, তাইজুল ১/৫, মিরাজ ০/২)।

বিস্তারিত

বিচিত্র খবর

gas bandhu jasim- manikganj uttaranews24

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলায় ধানকোড়া ইউনিয়নে গোলড়া গ্রামের মো: জসিম উদ্দিন(৪০) এলাকাবাসীর কথা চিন্তা করে  হাতে নিয়েছেন একটি মহৎ কাজ।তিনি মানুষের বাড়ি বাড়ি গ্যাস দিয়ে আসছে সাইকেলে বা মাথায় করে। তার মূল পেশা কাপড় দোকান কিন্তু এলাকার মানুষের কথা চিন্তা করে তিনি কাপড়ের দোকানের পাশাপাশি মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে গ্যাস দিয়ে আছে।গ্যাসের বোতলের দামের চেয়ে বেশি নেয় না।যদি কেও খুশি হয়ে ২০-৩০ টাকা দেয়ে তাহলে সে হাসি মুখে নেয়।

জসিম উদ্দিন উওরা নিউজকে জানান, আমার ছোট বেলা থেকে মানুষের সেবা করতে পারলে অনেক ভালো লাগে। আমি মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে গ্যাস দিয়ে আসি তখন আমার কোন কষ্ট যে মানুষের একটু হলে উপকার করছি।আমাকে কেও কেও খুশি হয়ে গ্যাসের বোতলে দামের চেয়ে ২০-৩০ টাকা বেশি দেয়। আল্লাহর রাস্তায় চলতে পেরে ও মানুষের উপকার করতে পেরে আমি অনেক খুশি হই।আমি যেন মানুষের সারা জীবন উপকার করে মরতে পারি।

রুবেল হোসেন উওরা নিউজকে জানান, যে জসিম উদ্দিনের হোম সাভিসের জন্য আমাদের গ্রামে বা আশে পাশের এলাকার অনেক উপকার হয়েছে । আমরা যে কেও তাকে ফোন দেওয়ার সাথে সাথে গ্যাস নিয়ে হাজির হয় সাইকেল বা মাথায় করে। অনেক সময় গ্যাসের বোতলের দাম নিয়ে চলে যায়। আমরা দেখি সে প্রতিদিন পাঁচ ওযাক্ত নামাজ পরে কোন ওয়াক্ত নামাজ কাযা করে না। তার এই কাজের জন্য খুশি এলাকাবাসীও।

বিস্তারিত

ছবিঘর

medialinks MAMS image
image



© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
উত্তরা নিউজ ২০১৩-২০১৭